রাজনী‌তিসবসারা দেশ

মানিকগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি ঝুলে থাকায় ক্ষোভ-অসন্তোষ

শাহরিয়ার হোসেন খান ( শাকির ):

শেয়ার করুনঃ

মেয়াদোত্তীর্ণের এক যুগ পার হলেও নানা জটিলতায় নতুন কমিটি হচ্ছে না মানিকগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মতো দুটি গুরুত্বপূর্ণ পদ চান ছাত্রলীগের হাফ ডজনের বেশি সাবেক নেতা । এ জন্য কমিটি দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সংসদের। পদপ্রত্যাশীদের অভিযোগ , সব প্রস্তুতি থাকার পরও অজ্ঞাত কারণে কমিটি ঘোষণা দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সংসদ । দীর্ঘদিন কমিটি ঝুলে থাকায় তাঁদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হচ্ছে । এ কারণে কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচি পালনে তাদের মধ্যে অনীহা দেখা যাচ্ছে । জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের পদপ্রত্যাশীদের মধ্যে আছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা যুবলীগের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিক খান তুষার, যুবলীগের সাবেক ক্রিয়াসম্পাদক সেলিম পারভেজ , জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম চৌধুরী রানা , সাদিকুল ইসলাম সোহা, সাধারণ সম্পাদক মহিদুজ্জামান মহিদ , এনামুল হক রুবেল ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইনামুল ইসলাম সাকিব । মানিকগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সূত্রে জানা গেছে , ২০০৪ সালে কাউন্সিলের মাধ্যমে লিয়াকত আলী ভাণ্ডারিকে সভাপতি ও হাবিবুর রহমান সেন্টুকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা কমিটি ঘোষণা করা হয় তিন বছর মেয়াদি | মানিকগঞ্জ পদপ্রত্যাশীদের অভিযোগ , সব প্রস্তুতি থাকার পরও অজ্ঞাত কারণে কমিটি ঘোষণা দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সংসদ । এ কারণে কেন্দ্রঘোষিত কর্মসূচি পালনে তাঁদের মধ্যে অনীহা দেখা যাচ্ছে । সিলেকশনের মাধ্যমে চলতে থাকে । এ সময়ের মধ্যে কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান সেন্টু মারা যান । অসুস্থ হয়ে পড়েন সভাপতি লিয়াকত আলী ভান্ডারি । ২০২১ সালের ২৯ মে কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ । স্বেচ্ছাসেবক লীগের পদপ্রত্যাশী বেশ কয়েকজন নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায় , দুই দফায় কমিটি ঘোষণা করার কথা থাকলেও তা ঘোষিত হয়নি । এরপর শোকের মাস আগষ্ট শুরু হওয়ায় সেপ্টেম্বর মাসে কমিটি ঘোষণা দেওয়ার কথা ছিল । তবে অক্টোবর চলে যাওয়ার পর নভেম্বরের অর্ধেক চলে গেলেও কমিটি দেওয়া হয়নি । জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রার্থী আবু বক্কর সিদ্দিক খান তুষার বলেন , জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি দেওয়ার জন্য গোপনে তাঁরা সার্ভে করছেন । খুব শিগগিরই নতুন কমিটি পাওয়া যাবে । জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রার্থী রফিকুল ইসলাম চৌধুরী রানা বলেন , ‘ আগে থেকে যারা ছাত্রলীগ করেছেন , তাঁরাই স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতৃত্ব দিয়েছেন । আশা করি , আমাদের জেলা কমিটি এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখবে । অপর সভাপতি প্রার্থী সাদিকুল ইসলাম সোহা বলেন , ‘ যোগ্য ও সাংগঠনিক ছাত্রনেতাদের দিয়ে কমিটি দিলে সেই কমিটি শক্তিশালী হয় । অযোগ্য ও নানা অভিযোগে অভিযুক্তদের দিয়ে কমিটি দিলে , সেই কমিটি বিতর্কিত হয় । কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা বুঝেশুনে এমন এক কমিটি দেবেন , যে কমিটি নিয়ে কোনো বিতর্ক হবে না । মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মহীউদ্দীন বলেন , শুধু স্বেচ্ছাসেবক লীগ নয় , যেকোনো সংগঠনের কমিটি না থাকলে তার কার্যক্রম ব্যাহত হয় । দলীয় কর্মসূচি পালনে নেতা – কর্মীদের মধ্যে অনীহা দেখা দেয় । যত দ্রুত সম্ভব সবার সঙ্গে সমন্বয় করে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি দেওয়ার কথা বলেন তিনি । স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ বলেন , মানিকগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটির বিষয়ে আমাদের কার্যক্রম অব্যাহত আছে । চলতি বছরের যেকোনো সময় নতুন জেলা কমিটি ঘোষণা করা হবে । সবার সমন্বয়ে এমন এক কমিটি দেওয়া হবে , যা নিয়ে কোনো বিতর্ক সৃষ্টি হবে না ।


শেয়ার করুনঃ
Show More

সম্পর্কিত খবর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Back to top button